শেরপুর জেলায় ১৪২টি পূজামন্ডপে শারদীয় দূর্গা পূজা অনুষ্ঠিত হবে

সম্পাদক-প্রকাশকঃ মারুফুর রহমান ফকির
বৃহস্পতি, 15.10.2020 - 04:10 PM
Share icon
Image

সঞ্জীব চন্দ বিল্টু, শেরপুরঃ শেরপুর জেলায় ১৪২টি মন্ডপে শারদীয় দূর্গা পূজা অনুষ্ঠিত হবে এবার। শেরপুরের জেলা প্রশাসক আনার কলি মাহবুবের সভাপতিত্বে ভার্চুয়াল প্লাটফর্মে প্রস্তুতিমূলক এক মতবিনিময় সভা জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়। 

জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি সুব্রত দে ভানু ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় জানান, এবার জেলায় ১৪২টি পূজামন্ডপে শারদীয় দূর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হবে। শেরপুর সদরে ৪২টি, নালিতাবাড়ীতে ৩৫টি, শ্রীবরদীতে ১০টি, ঝিনাইগাতীতে ১৭টি ও নকলায় ১৮টি পূজামন্ডপে ২২ অক্টোবর থেকে ৪দিনব্যাপি দূর্গাপূজার আনুষ্ঠানিকতা চলবে। 

কোভিড-১৯ এর কারণে এবার দূর্গাপূজায় জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন ও হিন্দু সম্প্রদায়ের নেতৃবৃন্দের সাথে এক ভার্চুয়াল মিটিং এ কিছু সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়। তবে এ বছর করোনা ভাইরাসের কারণে জাঁকজমক পূর্ণভাবে না হলেও স্বাস্থ্যবিধি মেনে দূর্গাপূজা আয়োজন করবেন বলে জানিয়েছেন হিন্দু সম্প্রদায়ের নেতৃবৃন্দ।

নেতৃবৃন্দরা আরও বলেন, আমরা কেন্দ্রীয় পূজা উদযাপন পরিষদের পরামর্শ অনুযায়ী অনুযায়ী স্বাস্থ্য বিধি মেনে শুধুমাত্র মন্দিরের ভিতরে আয়োজনের ব্যবস্থা করেছি। তবে এবার সড়কগুলোতে আলোকসজ্জা, গান-বাজনাসহ বিভিন্ন অনুষ্ঠান না করার ব্যাপারেও আমরা ইতিমধ্যে সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় অংশ নেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বিল্লাল হোসেন, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ রফিকুল ইসলাম, শ্রীবরদী উপজেলা চেয়ারম্যান এডিএম শহিদুল ইসলাম, শেরপুর পৌরসভার ভারপ্রাপ্ত মেয়র আতিউর রহমান মিতুল, আনসার, ভিডিবি, ফায়ার সার্ভিস, বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার কর্মকর্তা ও জেলার হিন্দু সম্প্রদায়ের বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ। 

শেরপুর জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি এড. সুব্রত দে ভানু সাংবাদিকদের বলেন, সাম্প্রদায়িক সম্প্রতির জেলা শেরপুর। তাই দল-মত, ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে এবারের পূজা অনুষ্ঠিত হবে। এর মধ্যে আমাদের সঙ্গে বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির আলোচনা হয়েছে।

করোনা ভাইরাস প্রাদূর্ভাবের জন্য স্বাস্থ্য বিধি মেনে শুধুমাত্র মন্দিরের ভিতরে আয়োজনের কথা বলা হয়েছে। তবে এবার সড়কগুলোতে আলোকসজ্জা, মাইক, গান-বাজনার ব্যবস্থা বাদ দিয়ে অনাড়ম্বর অনুষ্ঠান করার জন্য জেলার বিভিন্ন পূজামন্ডপের নেতৃবৃন্দকে অনুরোধ করা হয়েছে।

 

Share icon