ফলোআপঃ ব্যবহৃত ব্যান্ডরোল ব্যবহার করে সরকারের বিপুল পরিমাণ রাজস্ব কর ফাঁকি

সম্পাদক-প্রকাশকঃ মারুফুর রহমান ফকির
সোম, 03.08.2020 - 08:01 AM
Share icon

 স্টাফ রিপোর্টারঃ ইদ্রিস এন্ড কোং প্রাইভেট লিমিটেডের ৩০নং রসিদা বিড়ি ফ্যাক্টরির প্রতিষ্ঠাতা আলহাজ্ব ইদ্রিস মিয়া দীর্ঘদিন যাবৎ ব্যবহৃত নকল ব্যান্ডরোল ব্যবহার করে সরকারের বিপুল পরিমাণ রাজস্ব কর ফাঁকি দিয়ে যাচ্ছে।

এ বিষয় সচেতন মহলের দাবী, এই অপরাধের সাথে জড়িত ব্যক্তি অনেক ক্ষমতাধর ও বিপুল পরিমাণ অর্থ সম্পদের মালিক। সে কারনে অসাধু কিছু দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে অর্থের প্রলোভন দেখিয়ে ইতিমধ্যেই তাদেরকে ম্যানেজ করে ফেলেছে বলে অনেকেরই ধারণা। তারা বলেন অনৈতিক সুবিধা নিয়ে প্রকৃত অপরাধীকে ইতিমধ্যে সহযোগিতা করার আশঙ্কাও করছেন।

এ বিষয়ে সরকারের প্রতি জোর দাবি জানিয়ে তারা বলেন, প্রসাসনের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তার মাধ্যমে দ্রুততম পদক্ষেপ নিয়ে প্রকৃত অপরাধীদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হওক।

উল্লেখ্য, ইদ্রিস এন্ড কোং প্রাইভেট লিমিটেড'র ২টি প্রতিষ্ঠান জিহান ডেইরি ফার্ম ও শ্রীবরদী রশিদা বিড়ি ফ্যাক্টরিতে গত ৩০ জুলাই বুধবার রাত ৯টা থেকে রাত সাড়ে সাড়েবারটা পর্যন্ত এনএসআই’র তত্বাবধানে (জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা), জেলা প্রশাসন ও র‌্যাব-১৪ সিপিসি-১ জামালপুর এর যৌথভাবে এ অভিযান পরিচালনা করে।

অভিযানকালে জিহান ডেইরী ফার্মের গুদাম থেকে আড়াই লক্ষ বিড়ির প্যাকেটে ও শ্রীবরদী রশিদা বিড়ি ফ্যাক্টরীর কারখানার গুদাম থেকে দেড় লক্ষ বিড়ির প্যাকেটে লাগানো নকল ব্যান্ডরোল জব্দ করা হয়। যার আনুমানিক মূল্য ৩২ লক্ষ টাকা।

এসময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ ফিরোজ আল মামুন বলেন, একই সাথে দুই জায়গায় অভিযান চলছে,আমরা প্রাথমিকভাবে আনুমানিক চার লক্ষ বিড়ির প্যাকেটে ব্যবহৃত নকল ব্যান্ডরোল উদ্ধার করেছি। যার আনুমানিক মূল্য ৩২ লক্ষ টাকা। তিনি আরও বলেন, ঐ প্রতিষ্ঠানের সহকারি দুই ম্যানেজারকে আটক করেছি।

এ বিষয়ে শেরপুর এনএসআই কার্যালয়ের উপ- পরিচালক মােহাম্মদ গােলাম কিবরিয়া বলেন, একটি ব্যান্ডরােলের সরকারি মূল্য ৮ টাকা । বিড়ির মালিক বাজার থেকে ৫০ পয়সা দিয়ে পুরাতন ব্যান্ডরােল কিনে ওইসব ব্যান্ডরােল বিড়িতে লাগিয়ে প্রতিদিন বিপুল পরিমাণ রাজস্ব ফাঁকি দিচ্ছিলেন ।

র‍্যব-১৪ সিপিসি-১ জামালপু'র কোম্পানী কমান্ডার এম এম সবুজ রানা জানান, রশিদা বিড়ি কর্তৃপক্ষ দীর্ঘদিন ধরে পান - সিগারেটের দোকান থেকে পুরাতন বিড়ির ব্যান্ডরােল কিনে নতুন বিড়ির প্যাকেটে লাগিয়ে সরকারের মােটা অঙ্কের কর ফাঁকি দিয়ে আসছিল।

এ ব্যাপারে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মােহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, রশিদা বিড়ি ফ্যাক্টরির লছমনপুর গুদাম থেকে ব্যবহৃত ব্যান্ডরােল উদ্ধারের ঘটনায় র‍্যাবের এসআই নয়ন পাটোয়ারী বাদী হয়ে অতিরিক্ত ম্যানেজার শফিউল আলমকে স্বনামেসহ আরও অজ্ঞাতনামা ২/৩ জনকে আসামি করে একটি অভিযােগ দায়ের করেছেন।

অভিযানকালে এনএসআই জেলা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ গোলাম কিবরিয়া, শেরপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ ফিরোজ আল মামুন, র‍্যাব-১৪ সিপিসি-১ জামালপুর'র কোম্পানী কমান্ডার এম এম সবুজ রানা, শ্রীবরদী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নিলুফা আক্তার, সহকারী কমিশনার (ভূমি) মঞ্জুর আহসান ও স্থানীয় প্রিন্ট-ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকগণ উপস্থিত ছিলেন।

এ ঘটনায় শেরপুর সদর থানায় ও শ্রীবরদী থানায় বিশেষ ক্ষমতা আইনে পৃথক দুইটি মামলা হয়েছে। এ মামলায় গ্রেফতারকৃত আসামিদের আদালতে সােপর্দ করার পর জামিন নামঞ্জুর করে বিজ্ঞ আদালত আসামিদের জেলহাজতে প্রেরনের নির্দেশ দেন।

 

Share icon